মাথাব্যথা, আর দুশ্চিন্তা ৩০ সেকেন্ডে উধাও !

এমন কিছু টিপস যা আপনার খুবই উপকারে আসবে!

আমরা অনেকেই প্রায়ই মাথাব্যথা নিয়ে ভুগি। আবার অনেকেই নানান করণে টেনশনে থাকি, নানা রকম দুশ্চিন্তা আমাদেরকে আঁকড়ে ধরে থাকে, এর ফলে মাথা ভারী হয়ে থাকে । এইসব কঠিন মুহূর্তগুলো এবং খারাপ লাগার অনুভূতি গুলি সত্যিই আমাদেরকে খুব যন্ত্রণা দিয়ে থাকে।

মাথাব্যথা, আর দুশ্চিন্তাও ৩০ সেকেন্ডে উধাও !

অনেক সময় ওষুধ খেলে এই সমস্ত থেকে কিছুক্ষণের জন্য মুক্তি পাওয়া যায়, কিন্তু তার জন্য অনেক সময় লাগে, আবার লাগে অর্থ। যদি এমন হয়, মাত্র ৩০ সেকেন্ড থেকে ১ মিনিটের মধ্যে এই দুঃসহ যন্ত্রণা থেকে মুক্তি পাওয়া যায়, তাও আবার কোনো ওষুধপত্র ছাড়াই তাহলে কেমন হয়।

আপনার কি অসম্ভব মনে হচ্ছে? একদমই না বন্ধুরা। এটা একেবারেই অসম্ভব কিছু না। আমাদের মধ্যে অনেকেই জানি যে, রোগ ও ব্যথা নিরাময় করার জন্য ব্যবহৃত বহু প্রাচীন চিকিৎসা পদ্ধতি হল আকুথেরাপি। আমাদের শরীরের রোগ নির্ণয় করা, রোগ নিরাময় করা ও রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধি করতে ব্যবহার করা হয় আকুথেরাপি। দেহে সুচের মতো চাপ প্রয়োগ করে দেওয়া হয় আকুথেরাপি। এখনও অনেক দেশেই প্রচলিত আছে আকুপাংচার পদ্ধতি। এতে ভয় পাবেন না, আপনার টেনশন বা মাথাব্যথা থেকে মুক্তি পেতে মাথায় সূচ ফোটাতে হবে না।

মাত্র ৩০ থেকে ১ মিনিট বাম হাতের পয়েন্টে ডান হাতের আঙ্গুল দিয়ে ছবির মতো চাপ দিয়ে ধরে রাখুন। কাজ শেষ! আর মুহূর্তেই আপনার মাথাব্যথা কোথায় পালিয়েছে, আর এর সাথে সাথে দুশ্চিন্তাও উধাও! যদি এই পদ্ধতি আপনার ভালো লাগে তাহলে আপনার প্রয়োজন মতো চালিয়ে যান । এর সাথে সাথে শেয়ার করে আপনার বন্ধু দের জানার সুযোগ করে দিন।

মাথাব্যথা থেকে মুক্তি পাওয়ার আরও ৮টি সহজ উপায় আছে। এই সব উপায় কিছুক্ষণের জন্য মুক্তি দেয় বটে, কিন্তু কিছু অভ্যাস রপ্ত করে নিলে আপনি মাথাব্যথা থেকে সারা জীবন মুক্ত পেতে পারেন।

কিছু সহজ টিপস

১. প্রত্যেক দিন ঘুমানোর একটি নির্দিষ্ট সময় করুন এবং পর্যাপ্ত পরিমাণে ঘুমান

২. প্রতিদিন হালকা ব্যায়াম করার অভ্যাস করুন। ব্যায়াম করলে শরীরের মধ্যে রক্ত চলাচল ভাল হয়, ফলে মাথাব্যথা দূর হওয়ার সম্ভবনা থাকে অনেকাংশে।

৩. সব সময় চিন্তা থেকে দূরে থাকুন ও প্রতিদিন পর্যাপ্ত পরিমাণে জল পান করুন।

৪. চা কিংবা কফি পান করতে পারেন। চাকফিতে বিদ্যমান আছে ক্যাফেইন যা মাথাব্যথার অ্যান্টিবায়োটিক হিসেবে কাজ করে। তাই চা কিংবা কফি পান করলে মাথা ব্যাথা দূর হয়।

৫. লবঙ্গ গুঁড়ো করে পাতলা পরিষ্কার কাপড়ে নিয়ে ঘ্রাণ নিন। এতে মাথাব্যথা অনেকটা কমে যাবে।

৬. পারেন তো হালকা গরম জলে হাত ও পা ভিজিয়ে রাখুন। এর ফলে শরীরের রক্ত সঞ্চালন ভাল হয়। ফলে আপনার মাথাব্যথা কমে যাবে।

Best Mobile Under 10000 in 2019

৭. যদি আপনি কম্পিউটার বা ল্যাপটপ চালান তাহলে একটানা কম্পিউটার কিংবা ল্যাপটপে কাজ করবেন না। মাঝে মাঝে আপনার চোখকে বিশ্রাম দিন। একটানা কম্পিউটার কিংবা ল্যাপটপ চালালে মাথা ব্যাথা করে।

৮. মাথা, কপালঘাড় ভালমতো করে ম্যাসাজ করুন বা কাউকে দিয়ে ম্যাসাজ করান। এতে আপনার মাথাব্যথা দূর হবে।

Nokia Lowest Priced Smartphone

আপনার যদি নিয়মিত মাথা ব্যাথা করে তাহলে চিকিৎসকের পরামর্শ নিন। অনেক সময় মাথাব্যাথা চোখের সমস্যার জন্যও হয়ে থাকে। তাই ডাক্তারের কথা একবারের জন্য ভুলে যাবেন না।


আর কিছু যা আপনার জানা দরকারঃ

১) হঠাৎ করে প্রেসার কমে বা বেড়ে গেলে কি করবেন?

২) ডেঙ্গু জ্বর- লক্ষণ ও প্রতিকার

৩) লবঙ্গ চা খাওয়ার উপকারিতা

One Comment

Add a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *